অস্ট্রেলিয়ায় প্রথম সমকামী বিয়ে দুই নারীর

কেবলি অস্ট্রেলিয়ায় বৈধতা পেয়েছে সমকামী বিয়ে। এরপরই প্রথম এ খাতায় নাম লেখালেন লরেন প্রাইস (৩১) ও এমি লাকার (২৯) নামে দুই নারী।

দীর্ঘদিন সমকামী প্রেমের পর এবার তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন। এ উপলক্ষে আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। বিয়েতে দুজনই সাদা সাদা রঙের গাউন পরে এসেছিলেন।

তিন বছর আগে একটি জনাকীর্ণ বারে এই দুই যুবতীর প্রথম দেখা হয়। তখন থেকেই তারা একে অন্যের জন্য ‘অপরিহার্য’ ও ‘অবিচ্ছেদ্য’ হয়ে ওঠেন। একপর্যায়ে সিদ্ধান্ত নেন বিয়ে করার।

কিন্তু, আইনি বাঁধার কারণে সেটা সম্ভব হচ্ছিল না। অবশেষে অস্ট্রেলিয়ায় সমকামী বিয়েকে বৈধতা দেওয়া হলে আশার আলো দেখেন এ সমকামী প্রেমিক জুটি। দেড় বছর ধরে তারা একে অন্যকে বিয়ে করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

অবশেষে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ এসে হাজির তাদের সামনে। তবে আগামী বছর তারা তাদের দাম্পত্য জীবন শুরু করতে যাচ্ছেন।

তারা একজন স্বামী ও অন্যজন স্ত্রী হিসেবে নিজেদের দাবি করলেও সরকারি খাতায় তাদের ঘোষণা করা হয়েছে ‘ওয়াইফ অ্যান্ড ওয়াইফ’ হিসেবে। শনিবার সিডনির ক্যামডেনে অবস্থিত মাকারথুর পার্কে তাদের এ স্বীকৃতি দেওয়া হয়। তারা রেজিস্ট্রি খাতায় স্বাক্ষর করে হয়ে যান প্রথম সমকামী দম্পতি।

এজন্য আগে থেকেই সব আয়োজন সেরে রাখা হয়। আমন্ত্রণ জানানো হয় ঘনিষ্ঠ আত্মীয়দের। সাজানো হয় বিয়ের আসর। বিয়েতে উপস্থিত হয়েছিলেন ৬৫ জন অতিথি।

অস্ট্রেলিয়ায় ভোটে পাস হওয়া নিয়ম অনুযায়ী সমকামী বিয়ের অনুষ্ঠানের এক মাস আগে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নোটিশ করতে হবে এবং তাদের কাছ থেকে বিশেষ অনুমোদন নিতে হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে তা অনুসরণ করা হয়নি।

এই দম্পতি তাদের জীবনের সবচেয়ে বড় দিনটি উদযাপন করার পরিকল্পনা করছেন নতুন বছরে।

Leave A Reply